মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই ২০২৪, ০২:২৮ অপরাহ্ন

ইসলামের দৃষ্টিতে নারীদের জন্য অলঙ্কার ব্যবহার কি বৈধ
রিপোর্টারের নাম / ১৭০ কত বার
আপডেট: শুক্রবার, ২৮ মে, ২০২১
প্রশ্ন: ইসলামের দৃষ্টিতে নারীদের জন্য অলঙ্কার ব্যবহার কি বৈধ? আর শরীরে ট্যাটু বা উল্কি অঙ্কনের ব্যাপারে ইসলাম কী বলে?
উত্তর:
গয়না ছাড়া নারীদের রূপচর্চা পূর্ণতা পায় না। এটা ইসলামে তাদের জন্য বৈধ। আল্লাহ তাআলা নিজেই মেয়ের ব্যাপারে বলেছেন:
أَوَمَن يُنَشَّأُ فِي الْحِلْيَةِ
“আর যে অলংকারে লালিত-পালিত হয়।” (সূরা যুখরুফ: ১৮)
তাছাড়া মহিলা সাহাবীরা গয়না পরতেন।
সুতরাং স্বর্ণের অলংকার ব্যবহার করা নারীদের জন্য বৈধ। সোনা, রুপা, ডায়মন্ড, তামা, সিটি গোল্ড, সহ যত প্রকার jewellers আছে সব কিছু নারীদের জন্য বৈধ এবং শরীরের যে কোন অঙ্গে তা পরিধান করা যাবে। এমনকি স্বর্ণ পায়ে নূপুর হিসেবে ব্যবহার করলেও তাতে কোন সমস্যা নেই ইনশাআল্লাহ। তবে তা নন মাহরামদের সামনে বেপর্দা হয়ে সৌন্দর্য প্রদর্শন করে ঘুরে বেড়ানো হারাম। কেবল স্বামী, বাবা, ভাই, দাদা, চাচা ইত্যাদি মাহরাম পুরুষ এবং নারী অঙ্গনে সেগুলো প্রকাশ করতে পারে।
ইসলামে শরীরে ট্যাটু বা উল্কি অঙ্কন করা হারাম। কারণ, এ মর্মে হাদিস বর্ণিত হয়েছে: রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন,
لَعَنَ اللَّهُ الْوَاشِمَاتِ وَالْمُسْتَوْشِمَاتِ وَالنَّامِصَاتِ وَالْمُتَنَمِّصَاتِ وَالْمُتَفَلِّجَاتِ لِلْحُسْنِ الْمُغَيِّرَاتِ خَلْقَ اللَّهِ؛
“ঐসব নারীদের প্রতি অভিশাপ করেছেন, যারা সৌন্দর্য বৃদ্ধি করার উদ্দেশ্যে দেহে উল্কি (ট্যাটু) অঙ্কন করে এবং করিয়ে নেয় তারা উভয়ে অভিশপ্ত এবং যারা ভ্রু উপরে চিকন করে, দাঁত সরু বানায়। কারণ তারা আল্লাহর স্বাভাবিক সৃষ্টির বিকৃতি ঘটায়।” (বুখারী, মুসলিম/৪৪৩১)
এই বিধান নারী-পুরুষ সকলের জন্য প্রযোজ্য। নারীরা এটি বেশী করে বলে এখানে নারীদের কথা বলা হয়েছে। এটি আল্লাহর সৃষ্টির বিকৃতির শামিল।
আল্লাহু আলাম।
▬▬▬◆◯◆▬▬▬
উত্তর প্রদানে:
আব্দুল্লাহিল হাদী বিন আব্দুল জলীল
(লিসান্স, মদীনা ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়)
দাঈ, জুবাইল দাওয়াহ এন্ড গাইডেন্স সেন্টার, সৌদি আরব।
আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও খবর..
জনপ্রিয় পোস্ট
সর্বশেষ আপডেট