শনিবার, ২২ জুন ২০২৪, ১২:২৩ অপরাহ্ন

ছালাত সম্পর্কে প্রশ্নোত্তর
কাজী আসাদ বিন রমজান / ১৫৮ কত বার
আপডেট: বৃহস্পতিবার, ১৯ মে, ২০২২

প্রশ্ন (১) : কেউ যদি যোহর, আসর, মাগরিব ও ইশার ছালাত যথাসময়ে জামাআতে আদায় করে। কিন্তু ফজরের ছালাত নিয়মিত ত্যাগ করে পরবর্তীতে যোহরের আগে অথবা পরে অথবা অন্যকোনো সময়ে আদায় করে নেয় তবে তার বিধান কি হবে?

-মুহাম্মাদ আল ইমরান
সাদুল্লাপুর, গাইবান্ধা।

উত্তর : ছালাতের ব্যাপারে উক্ত কথা কোনোক্রমেই গ্রহণযোগ্য নয়। সকল কাজের আগে ছালাতকে প্রধান্য দিতে হবে। যেকোনো মূল্যে নির্ধারিত সময়েই ছালাত আদায়ের চেষ্টা করতে হবে। মহান আল্লাহ বলেন, ‘নির্ধারিত সময়ে ছালাত কায়েম করা মুমিনদের জন্য অবশ্য কর্তব্য’ (আন-নিসা, ৪/১০৩)। আর ছালাত বাদ দিয়ে বা ছালাতকে তুচ্ছ মনে করে অন্য ইবাদত করে কোনো লাভ হবে না। রাসূল a বলেন, ক্বিয়ামতের মাঠে বান্দার সর্বপ্রথম হিসাব নেয়া হবে ছালাতের। ছালাতের হিসাব শুদ্ধ হলে তার সমস্ত আমলই শুদ্ধ হবে। আর ছালাতের হিসাব ঠিক না হলে, তার সমস্ত আমল বরবাদ হবে’ (ত্বাবারাণী, আল-মু‘জামুল আওসাত্ব, হা/১৮৫৯, সিলসিলা ছহীহা, হা/১৩৫৮)। সুতরাং নিয়মিতভাবে ফজরের ছালাত ক্বাযা করার এই অভ্যাস পরিত্যাগ করতে হবে। আর ওয়াক্তমত ফজরের ছালাত আদায়ের জন্য যথাসাধ্য প্রচেষ্টা চালাতে হবে। এরপরও কোন কারণবশত কোনদিন ঘুম থেকে উঠতে না পারলে যখন জাগ্রত হবে, তখনই আদায় করে নিবে। রাসূল a বলেন, مَنْ نَسِيَ صَلَاةً أَوْ نَامَ عَنْهَا فَكَفَّارَتُهُ أَنْ يُّصَلِّيَهَا إِذَا ذَكَرَهَا ‘যদি কেউ কোন ছালাত আদায় করতে ভুলে যায় অথবা আদায় না করে ঘুমিয়ে পড়ে, তাহলে তার কাফফারা হলো, যখনই স্মরণ হবে, তখনই আদায় করে নিবে’ (ছহীহ মুসলিম, হা/৬৮৪; মিশকাত, হা/৬০৩)।

প্রশ্ন (২) : জুমআর ছালাত কত রাকা‘আত? আর দুই রাকা‘আত ফরয পরে কত রাকা‘আত সুন্নত আদায় করতে হবে?

-নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক
গাজীপুর।

উত্তর : জুমআতে ফরয ছালাতের পরিমাণ হলো দুই রাকা‘আত। জুম‘আর পূর্বে নির্দিষ্ট কোন সুন্নাত ছালাত নেই। সময় পেলে খুৎবার আগ পর্যন্ত যত খুশী দুই রাকা‘আত করে নফল ছালাত আদায় করবে (ছহীহ বুখারী, হা/৮৮৩)। অন্যথায় কেবল তাহিয়্যাতুল মসজিদ হিসেবে দুই রাকা‘আত পড়ে বসবে (ছহীহ বুখারী, হা/১১৬৩)। জুমআর পরে যদি মসজিদে সুন্নাত ছালাত আদায় করতে চায় তাহলে চার রাক‘আত আদায় করবে। আবূ হুরায়রা c থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, রাসূলুল্লাহ a বলেছেন, ‘তোমাদের কেউ যখন জুমআর ছালাত আদায় করে, তখন সে যেন তার পরে চার রাকা‘আত (সুন্নাত) ছালাত আদায় করে’ (ছহীহ মুসলিম, হা/৮৮১)। আর যদি বাড়ীতে আদায় করতে চায় তাহলে দুই রাক‘আত ছালাত আদায় করবে। আব্দুল্লাহ ইবনু উমার h হতে বর্ণিত, তিনি বলেন, রাসূল a জুমু‘আহর দিন নিজের ঘরে ফিরে না যাওয়া পর্যন্ত ছালাত আদায় করতেন না। (ঘরে গিয়ে) তিনি দুই রাক‘আত ছালাত আদায় করতেন (ছহীহ বুখারী, হা/৯৩৭, ছহীহ মুসলিম, হা/৮৮২)।

প্রশ্ন (৩) : দাঁড়াতে পারে, রুকূ‘ করতে পারে কিন্তু পা ভাজ করে বসতে পারে না এক্ষেত্রে কিভাবে ছালাত আদায় করা উচিত ৷ আর এমন ব্যক্তি চেয়ারে বসে সম্পূর্ণ ছালাত আদায় করতে পারবে কি-না?

-হারুনুর রশীদ
চাপাই নবাবগঞ্জ।

উত্তর : ছালাতের বেশ কিছু রুকন ও ওয়াজিব কাজ আছে যেগুলো কেউ ইচ্ছাকৃতভাবে ছেড়ে দিলে ছালাত বাতিল হয়ে যাবে। যেমন. রুকূ‘ করা, সিজদা করা সেই রুকনগুলোরই অন্তর্ভুক্ত। আল্লাহ তাআলা বলেন, ‘তোমরা ছালাতের প্রতি যত্নবান হবে, বিশেষত মধ্যবর্তী ছালাতের প্রতি এবং আল্লাহর উদ্দেশ্যে তোমরা বিনীতভাবে দাঁড়াবে’ (আল-বাক্বারা, ২/২৩৮)। ইমরান ইবনু হুসাইন c হতে বৰ্ণিত, তিনি বলেন, আমার অৰ্শরোগ ছিল। তাই রাসূলুল্লাহ a-এর খিদমতে এসে ছালাত সম্পর্কে প্রশ্ন করলাম। তিনি বললেন, ‘দাঁড়িয়ে ছালাত আদায় করবে, তা না পারলে বসে। যদি তাও না পারো তাহলে শুয়ে ছালাত আদায় করবে’ (ছহীহ বুখারী, হা/১১১৭, তিরমিযী, হা/৩৭২, আবূ দাউদ, হা/৯৫২)। অত্র হাদীছ প্রমাণ করে যে, মানুষ তার শরীরের গতি অনুযায়ী ছালাত আদায় করবে। সম্ভব হলে দাঁড়িয়ে, না হলে বসে, আর না হলে শুয়ে ছালাত আদায় করবে। তবে একেবারে নিরূপায় হয়ে চেয়ারে বসে ছালাত আদায় করা যায়।

প্রশ্ন (৪) : প্রাণীর ছবিযুক্ত পোশাক পরে ছালাত আদায় করা যাবে কি?

-রেজাউল হক
দক্ষিন চব্বিশ পরগনা, ভারত।

উত্তর : প্রথমত মানুষ বা যেকোনো প্রাণীর ছবিযুক্ত কোনো পোশাক পরিধান করা জায়েয নেই। ছোট-বড় সকল মুসলিমের জন্য এ ধরনের পোশাক পরিধান করা অবৈধ। আর প্রাণীর ছবিযুক্ত পোশাক পরে ছালাত আদায় করাও জায়েয নয়। কেউ যদি এ ধরনের পোশাক পরে ছালাত আদায় করে, তাহলে তার ছালাত ছহীহ হবে না। কেননা রাসূল a বলেছেন, ‘ঐ ঘরে রহমতের ফেরেশতা প্রবেশ করে না যেখানে ছবি বা কুকুর রয়েছে’ (ছহীহ বুখারী, হা/৩২২৬; ছহীহ মুসলিম, হা/২১০৬)।

প্রশ্ন (৫) : নিয়মিত যোহর ছালাতের পূর্বের সুন্নাত না পড়লে কোনো সমস্যা হবে কি?

-মো. আব্দুস সামাদ
দিনাজপুর।

উত্তর : সুন্নাত ছালাত আদায়ের ফযীলত অনেক। সুতরাং প্রত্যেক মুসলিমের উচিত সুন্নাত ও নফল ইবাদতের প্রতি আগ্রহী হওয়া। উম্মু হাবীবা g থেকে বর্ণিত, তিনি বলেছেন, আমি রাসূলুল্লাহ a-কে বলতে শুনেছি যে, দিন ও রাতে যে ব্যক্তি মোট বারো রাকা‘আত (সুন্নাত) ছালাত আদায় করে তার বিনিময়ে জান্নাতে ঐ ব্যক্তির জন্য একটি ঘর নির্মাণ করা হয়। এ সুন্নাতগুলো হলো- যোহরের (ফরযের) পূর্বে চার রাকা‘আত ও পরে দুই রাকা‘আত, মাগরিবের (ফরযের) পর দুই রাকা‘আত, ইশার (ফরযের) পর দুই রাকা‘আত এবং ফজরের (ফরযের) পূর্বে দুই রাকা‘আত (ছহীহ মুসলিম হা/৭২৮, তিরমিযী, হা/৪১৪)। আবার ক্বিয়ামতের দিন ফরয ইবাদতের ঘাটতি হলে আল্লাহর হুকুমে নফল ইবাদতের নেকি দ্বারা তা পূর্ণ করা হবে (আবূ দাঊদ, হা/৮৬৪; তিরমিযী, হা/৪১৩)। তবে অবজ্ঞা না করে অলসতা বা কোনো কারণবশত সুন্নাত ছেড়ে দিলে সমস্যা নেই। আর কোন ব্যক্তি নফল ছালাত ছাড়ার কারণে গুনাহগার হয় না। তবে অবশ্যই তিনি বড় ধরণের ফযীলত থেকে বঞ্চিত হবেন।

প্রশ্ন (৬) : দুই রাকা‘আত বিশিষ্ট ছালাতের শেষ বৈঠকে তাওয়াররুক করে বসা কি সুন্নাত?

-মো. জহিরুল ইসলাম
ঢাকা।

উত্তর : ছালাতের যে বৈঠকে সালাম আছে সেখানেই তাওয়াররুক করে বসবে। আবূ হুমাইদ আস-সায়েদী c রাসূল a-এর ছালাতের বর্ণনা দিতে গিয়ে বলেছেন, সবশেষে তিনি a সালাম ফিরানোর পূর্বের সিজদা শেষ করে বাম পা বাইরের দিকে বের করে বাম পাশের নিতম্বের উপর বসতেন (আবূ দাউদ, হা/৯৬৩, ইবনু মাজাহ, হা/১০৬১)।

প্রশ্ন (৭) : মহিলা ইমামের পিছনে মহিলারা ঈদের ছালাত আদায় করতে পারবে কি?

-আলাউদ্দীন আলী
ঢাকা।

উত্তর : না, মহিলার ইমামতিতে ঈদ ও জুমআর ছালাত আদায় করা যাবে না। তাছাড়া ঈদের ছালাতে খুৎবা আছে। আর মহিলাদের জন্য খুৎবা দেওয়া জায়েয নয়। শরীয়তে এর কোনো প্রমাণ পাওয়া যায় না। রাসূল a বলেছেন, ‘যে কেউ এমন কোন আমল করল, যাতে আমাদের নির্দেশনা নেই তা প্রত্যাখ্যাত (ছহীহ মুসলিম, হা/১৭১৮)।

প্রশ্ন (৮) : তারাবীহ ছালাত জামা‘আতে আদায় করার পর রাতের অনেক সময় বাকি থাকে। প্রশ্ন হলো- রাতে আমরা তারাবীহ ব্যতীত অতিরিক্ত নফল ছালাত আদায় করতে পারবো কি?

-ফজলে রাব্বী
মহিমাগঞ্জ, গোবিন্দগঞ্জ, গাইবান্দা।

উত্তর : উত্তম হলো তিন রাকা‘আত বিতরসহ মোট এগারো রাকা‘আত ছালাত আদায় করা। আবূ সালামা ইবনু আব্দুর রাহমান p হতে বর্ণিত, তিনি আয়েশা g-কে জিজ্ঞেস করেন, রামাযান মাসে আল্লাহর রাসূল a-এর ছালাত কেমন ছিল? তিনি বললেন, আল্লাহর রাসূল a রামাযান মাসে এবং অন্যান্য সময় (রাতে) এগার রাক‘আতের অধিক ছালাত আদায় করতেন না। তিনি চার রাকা‘আত ছালাত আদায় করতেন। তুমি সেই ছালাতের সৌন্দর্য ও দীর্ঘতা সম্পর্কে আমাকে প্রশ্ন করো না। তারপর তিনি আরো চার রাকা‘আত ছালাত আদায় করতেন, এর সৌন্দর্য ও দীর্ঘতা সম্পর্কে আমাকে প্রশ্ন করো না। অতঃপর তিনি তিন রাকা‘আত (বিতর) ছালাত আদায় করতেন (ছহীহ বুখারী, হা/১১৪৭)। উমার ইবনুল খাত্তাব c তামীম আদ-দারী ও উবায় ইবনু কা‘ব h-কে নির্শে দিয়েছিলেন যে, তারা যেন লোকদেরকে নিয়ে এগারো রাকা‘আত ছালাত আদায় করে (মুয়াত্ত্বা মালেক, হা/৩৭৯)।

প্রশ্ন (৯) : ইমামের সাথে তারাবীহ সম্পন্ন করে বাড়িতে এসে একাকী বিতর ছালাত আদায় করা যাবে কি?

-ফজলে রাব্বী
মহিমাগঞ্জ, গোবিন্দগঞ্জ, গাইবান্দা।

উত্তর : হ্যাঁ; যাবে। তারাবীহর ছালাত জামাআতে পড়া যেমন জরুরী নয়, তেমনই বিতর ছালাতও জামাআতে পড়া জরুরী নয়। কোন মুসল্লীর আরো ছালাত আদায়ের জন্য অথবা একাই বিতর ছালাত আদায়ের জন্য তারাবীহর ছালাতের পরে বাড়ি চলে যাওয়া, এমন আমলের কোন প্রমাণ নেই। বরং বিতরসহ তারাবীহ একা পড়াই উত্তম। রাসূল a বলেছেন, হে লোকেরা! তোমরা নিজ নিজ ঘরেও ছালাত আদায় করো। কারণ, মানুষের সবচেয়ে উত্তম ছালাত হল যা সে তার ঘরে আদায় করে, তবে ফরয ছালাত ছাড়া (ছহীহ বুখারী, হা/৭২৯০)।

আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও খবর..
জনপ্রিয় পোস্ট
সর্বশেষ আপডেট