মঙ্গলবার, ১৮ জুন ২০২৪, ০৬:১৬ অপরাহ্ন

সদকা ও কর্জে হাসানা এর অর্থ এবং এতদুয়ভয়ের মাঝে পার্থক্য
রিপোর্টারের নাম / ২৪৬ কত বার
আপডেট: বৃহস্পতিবার, ২১ অক্টোবর, ২০২১

সদকা ও কর্জে হাসানা এর অর্থ এবং এতদুয়ভয়ের মাঝে পার্থক্য
—————–
প্রশ্ন: সদকা ও কর্জে হাসানা এর অর্থ এবং এতদুয়ভয়ের মাঝে পার্থক্য কি?

উত্তর :
♦ সদকা ’শব্দের শাব্দিক অর্থ দান বা ডোনেশন।
আর ইসলামের পরিভাষায় সদকা বলতে বুঝায়, আল্লাহর সন্তুষ্টির উদ্দেশ্যে অভাবীকে কোন কিছু প্রদান করা। যেমন; টাকা-পয়সা, খাদ্যদ্রব্য, কাপড়, গবাদী পশু ইত্যাদি।

♦ আর কর্জে হাসানা অর্থ: উত্তম ঋণ। কুরআনে বহু স্থানে এর কথা উল্লেখিত হয়েছে কিন্তু তা দ্বারা আমাদের সমাজে প্রচলিত একে অপরকে ঋণ বা ধার (loan/الدين) দেয়ার অর্থ বুঝায় না।

নিম্নে কুরআনুল কারিমে ‘কর্জে হাসানা’ এর ব্যবহার এবং তার প্রকৃত অর্থ তুলে ধরা হল:

আল্লাহ তাআলা কুরআনুল কারিমের একাধিক স্থানে ‘কর্জে হাসানা’ এর কথা উল্লেখ করেছেন। যেমন:

✳ মহান আল্লাহ বলেন,
مَّن ذَا الَّذِي يُقْرِضُ اللَّـهَ قَرْضًا حَسَنًا فَيُضَاعِفَهُ لَهُ أَضْعَافًا كَثِيرَةً ۚ
“এমন কে আছে যে, আল্লাহকে করযে হাসানা (উত্তম ঋণ); অতঃপর আল্লাহ তাকে দ্বিগুণ-বহুগুণ বৃদ্ধি করে দিবেন।” (সূরা বাকরা:২৪৫)

✳ তিনি আরও বলেন,
مَّن ذَا الَّذِي يُقْرِضُ اللَّـهَ قَرْضًا حَسَنًا فَيُضَاعِفَهُ لَهُ وَلَهُ أَجْرٌ كَرِيمٌ
“এমন কে আছে যে, আল্লাহকে করযে হাসানা (উত্তম ঋণ); অতঃপর আল্লাহ তাকে দ্বিগুণ-বহুগুণ বৃদ্ধি করে দিবেন এবং তার জন্য রয়েছে সম্মানজনক পূরস্কার।” (সূরা আল হাদীদ:১১)

✳ তিনি আরও বলেন,
وَأَقِيمُوا الصَّلَاةَ وَآتُوا الزَّكَاةَ وَأَقْرِضُوا اللَّـهَ قَرْضًا حَسَنًا ۚ وَمَا تُقَدِّمُوا لِأَنفُسِكُم مِّنْ خَيْرٍ تَجِدُوهُ عِندَ اللَّـهِ هُوَ خَيْرًا وَأَعْظَمَ أَجْرًا ۚ
“তোমরা নামায কায়েম কর, যাকাত দাও এবং আল্লাহকে করযে হাসানা বা উত্তম ঋণ দাও। তোমরা নিজেদের জন্যে যা কিছু অগ্রে পাঠাবে, তা আল্লাহর কাছে উত্তম আকারে এবং পুরস্কার হিসেবে বর্ধিতরূপে পাবে।” (সূরা মুদ্দাসসির: ২০)

উক্ত আয়াতে কারীমা সমূহে উল্লেখিত আল্লাহকে কর্জে হাসানা বা উত্তম ঋণ দেয়ার অর্থ, “আল্লাহর পথে খরচ করা।” (তাফসীর ইবনে কাসীর, তাফসীরে বিন সাদী ইত্যাদি)

ইবনে যায়েদ বলেন, “যাকাত দেয়া ছাড়াও নিজের অর্থ-সম্পদ আল্লাহর পথে খরচ করা। এ খরচ আল্লাহর পথে জিহাদ করা, আল্লাহর বান্দাদের সাহায্য করা, জনকল্যাণমূলক কাজ করা কিংবা অন্যান্য কল্যাণকর কাজেও হতে পারে।”

এভাবে অর্থ ব্যয় করলে আল্লাহ তাকে নিজের জন্য ঋণ বলে গণ্য করেন। তাই তিনি এক্ষেত্রে কেবল আসলটি নয় বরং তার ওপর কয়েকগুণ বেশী দেয়ার ওয়াদা করেছেন।
কোন কোন আলেমের মতে, কর্জে হাসানা দ্বারা যে কোন সৎকর্মকেই বুঝায়।
মোট কথা, কুরআনে বর্ণিত কর্জে হাসানা বা উত্তম ঋণ দ্বারা উদ্দেশ্য হল, সম্পূর্ণ নিঃস্বার্থভাবে আল্লাহর সন্তুষ্টির উদ্দেশ্যে অর্থ-সম্পদ খরচ করা-যার পেছনে কোন ব্যক্তিগত বা দুনিয়াবী স্বার্থ জড়িত থাকবে না। বরং নিছক আল্লাহকে সন্তুষ্ট করার উদ্দেশ্যে তা এমন কাজে ব্যয় হবে যা তিনি পছন্দ করেন। অথবা অন্যান্য যে কোন সৎকর্ম যার প্রতিদান আল্লাহ তাআলা কিয়ামতের দিন আমল কারী কে অনেক বেশি পরিমাণে দান করবেন।
—𖣔-𖣔—
والله أعلم
উত্তর প্রদানে:
আব্দুল্লাহিল হাদী বিন আব্দুল জলীল
দাঈ, জুবাইল দাওয়াহ এন্ড গাইডেন্স সেন্টার, সৌদি আরব

আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও খবর..
জনপ্রিয় পোস্ট
সর্বশেষ আপডেট